1. masud.shah@gmail.com : Administrator :
  2. news.bholacrime@gmail.com : News Editor : News Editor
  3. subeditor.bholacrime@gmail.com : Sub Editor : Md. Iqbal Hossain
রাজনৈতিক শ্রদ্ধাবোধের ব্যাখ্যাকে অপ ব্যাখ্যা দেওয়ায় মঈনুল হোসেন বিপ্লবের দূঃখ প্রকাশ - Bhola Crime
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:১৩ অপরাহ্ন

রাজনৈতিক শ্রদ্ধাবোধের ব্যাখ্যাকে অপ ব্যাখ্যা দেওয়ায় মঈনুল হোসেন বিপ্লবের দূঃখ প্রকাশ

মোঃ মারুফ হাসান /সম্পাদক
  • রবিবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০২০

রাজনৈতিক শ্রদ্ধাবোধকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন ভোলা জেলা আওয়ামিলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মঈনুল হোসেন বিপ্লব ৷

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ভোলা জেলা আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় জনাব মঈনুল হোসেন বিপ্লব তার বক্তব্যে একটি বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে বলেন সাবেক সফল পানিমন্ত্রী জাতীয় নেতা মরহুম আব্দুর রাজ্জাক কাকার সুযোগ্য সন্তান মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব নাহিম রাজ্জাক ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের দৌহিত্র ও মাননীয় সংসদ সদস্য শ্রদ্ধেয় শেখ হেলাল মহোদয়ের সুযোগ্য সন্তান মাননীয় সংসদ সদস্য শেখ তন্ময় মহোদয়ের উদাহরণ দিতে গিয়ে বলেছিলেন তারা কিভাবে এমপি হলেন মানে মূল্যায়ন কি ছিল। তিনি বোঝাতে চেয়েছিলেন তারা দুজনই রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান আর রাজনীতিবীদের ঘরেই তো রাজনীতিবিদের জন্ম হয়।আর তাদের রাজনীতির হাতেখড়ি পরিবার থেকেই শুরু হয়। তাদের পরিবার যতদিন দেশের সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামে জেলজুলুম অত্যাচার সহ্য করেছেন সেই কষ্ট তার পরিবারের সকল সদস্যই ভোগ করেছেন।

জনাব বিপ্লব আর ও বলেন শেখ তন্ময় ভাইয়ের শ্রদ্ধেয় দাদা ১৫ ই আগস্টে জাতির পিতার পরিবারে সদস্যদের সাথে শহীদ হয়েছিলেন, দেশের জন্য জীবন দিয়েছিলেন।

তার বলার উদ্দেশ্য ছিল এই দুই পরিবার তাদের সন্তানদেরকে এমনভাবে প্রস্তুত করেছেন যে দলের প্রয়োজনে দেশের প্রয়োজনে তারা যেকোন দায়িত্ব নেয়ার জন্য উপযুক্ত।

একারণেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ তাদের পরিবারকে ও তাদের যোগ্যতাকে মূল্যায়ন করেছেন। আজ তারা নিজগুনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিক ভাবেই তারা পালন করছেন।

কিন্তু দুঃখ ও পরিতাপের বিষয় কিছু ব্যক্তি জনাব বিপ্লব হোসেনের বক্তব্যের ভুল বিশ্লেষণ করে একটি বিভেদ তৈরি করার ষড়যন্ত্র করছেন।

দুইজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্বকে মূল্যায়ন করা ও বড় করাই ছিল জনাব বিপ্লবের মূল উদ্দেশ্য।

আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান হয়ে তিনি কখনোই তার দলের গর্ব ও তার পছন্দের দুইজন মাননীয় সংসদ সদস্যকে হেয় করার দুঃসাহস দেখাতে পারেন না। তারপরেও তার বক্তব্যে যদি কারো মনে আঘাত লেগে থাকে তার জন্য তিনি আন্তরিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

আশা করি জনাব মঈনুল হোসেন বিপ্লব এর এই বক্তব্যের পর সকল ভুলবোঝার অবসান হবে।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
জয় হোক জননেত্রী শেখ হাসিনার ।

ভোলা জেলা আওয়ামিলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মঈনুল হোসেন বিপ্লব এর ফেসবুক থেকে সংগৃহীত ৷

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020