1. masud.shah@gmail.com : Administrator :
  2. news.bholacrime@gmail.com : News Editor : News Editor
"মিনি গেস্টরুমে" নির্যাতন, ভয়ে হল ছাড়লেন ঢাবির শিক্ষার্থী - Bhola Crime
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০২:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সাধারন সম্পাদক পদে নির্বাচিত করায় কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন জনাব মঈনুল হোসেন বিপ্লব সঙ্গী কি আপনাকে ‘ধোকা’ দিচ্ছে? বুঝে নিন এই টেকনিকে লালমোহনে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা অনুর্ধ্ব-১৭ “জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্ট-২০২২” উদ্বোধন করেন নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এম.পি নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন ছাড়া লালমোহন-তজুমদ্দিনের আওয়ামীলীগ কারো নিকট নিরাপদ নয় (শওকত ওসমান লিখন) ৭৫ দিন পর উদ্ধার হলো ফরহাদ মজুমদারের ছিনতাই হওয়া আইফোন পরকীয়া সম্পর্ক ৫ ধরনের এই বিষয়ে যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা (ভোলা ক্রাইম) ভোলায় ঠিকাদারকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় ছুরিকাঘাত (ভোলা ক্রাইম) ইসি গঠনে নামের তালিকা সংক্ষিপ্ত করে ২০ জনকে রাখার প্রস্তাবনা টেকনাফে আশ্রয়শিবির থেকে অস্ত্র-গুলিসহ ৩ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা বাংলাদেশকে শাস্তি নয়, সতর্ক করার জন্য [ভোলা ক্রাইম.কম]

“মিনি গেস্টরুমে” নির্যাতন, ভয়ে হল ছাড়লেন ঢাবির শিক্ষার্থী

মোঃ মারুফ হাসান
  • শুক্রবার, ১১ মার্চ, ২০২২

এ ছাড়া ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে অংশ না নেওয়ার অভিযোগ তুলে একই রাতে অন্তত ১০ জন শিক্ষার্থীকে হল থেকে ছাত্রলীগ বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

হলের অতিথিকক্ষে ডেকে নির্যাতন করার ঘটনা শিক্ষার্থীদের কাছে ‘গেস্টরুম নির্যাতন’ নামে পরিচিত। অন্যদিকে হলের কোনো কক্ষে ডেকে নির্যাতন করা হলে তাকে শিক্ষার্থীরা ‘মিনি গেস্টরুম’ নির্যাতন বলেন।

সাধারণত প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে গেস্টরুম নির্যাতনের শিকার হওয়ার বিষয়ে অভিযোগ করতে দেখা যায়। এবার দ্বিতীয় বর্ষের কোনো শিক্ষার্থীর নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিযোগ উঠল।

নির্যাতনের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তালিবের সহপাঠীসহ তৃতীয় বর্ষের একাধিক শিক্ষার্থীর ভাষ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি চিরন্তন এলাকায় সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র শেখ শান্ত আলমের সামনে আবু তালিব ধূমপান করেছেন, এমন অভিযোগে গতকাল রাতে তাঁকে (তালিব) হলের ২০১ (ক) নম্বর কক্ষে তলব করা হয়। সেখানে তালিবের অন্য সহপাঠীদেরও ডাকা হয়। ওই কক্ষে যাওয়ার পর তালিবের মুখে জোর করে সিগারেট ধরিয়ে দেন শেখ শান্ত আলম ও ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ইমদাদুল হক ওরফে বাঁধন। তালিবকে হাত দিয়ে না ধরে ও ধোঁয়া না ছেড়ে সিগারেটটি শেষ করতে বলেন তাঁরা।

ওই শিক্ষার্থীরা বলেন, নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করতে না পারায় আবু তালিবকে স্টাম্প দিয়ে পেটান শান্ত আলম ও ইমদাদুল। এ সময় তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের শাহাবুদ্দিন ইসলাম ওরফে বিজয় এবং আইন বিভাগের নাহিদুল ইসলাম ওরফে ফাগুন তালিবকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে অনিয়মিত হওয়ার অভিযোগ তুলে এদিন রাতেই অন্তত ১০ জন ছাত্রকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়। ওই শিক্ষার্থীরা হলের ৩০১ (ক) নম্বর কক্ষে থাকতেন। কক্ষটিতে তালাও ঝুলিয়ে দিয়েছে ছাত্রলীগ।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে শান্ত আলম প্রথম আলোর কাছে দাবি করেন, এই অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা ও ভুয়া। এ ধরনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি।

ইমদাদুলও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

যে চারজনের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে, তাঁরা সবাই হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান ওরফে শান্তর অনুসারী হিসেবে পরিচিত। এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে মেহেদীর মুঠোফোনে একাধিক কল করেও তাঁর সাড়া পাওয়া যায়নি।

অভিযোগের বিষয়ে হল প্রাধ্যক্ষ মো. আকরাম হোসেন বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। দায়িত্বরত শিক্ষকদের খোঁজ নিতেও বলেছেন। অভিযোগের তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020